মুহিব খান

মুহিব খান পুরো নাম মুহিববুর রহমান খান। যার কথা ও গুন দুইকলমে লিখে শেষ করা যাবে না। বাংলাদেশের একজন জননন্দিত কবি, শিল্পী, সাংবাদিক, কলামিস্ট, আলোচক ও উপস্থাপক। একজন উদারপন্থী ইসলামি চিন্তাবিদ ও প্রগতিশীল রাজনৈতিক বিশ্লেষক হিসেবেও তিনি দলমত নির্বিশেষে সর্বমহলে সমাদৃত জনপ্রিয়।।

তার কবিতা কন্ঠ ও সংগীত দেশপ্রেম, মানবতা, বিশ্ব-শান্তি, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও জাতীয় সংহতির চেতনায় জাতিকে উদ্বুদ্ধ করে।।

মুহিব খানের কিছু সংগীত এ্যালবাম-
সীমান্ত খুলে দাও, ইঞ্চি ইঞ্চি মাটি, এ মেরা ওয়াতান, দাস্তানে মুহাম্মাদ (স:), নতুন ইসত্তেহার আসছে, আবার যুদ্ব হবে, সীমান্ত খুলে দাও, দিন বদলের দিন এসেছে, মরু সাহা, শিকল ভাঙার ঝড়। সম্প্রতি ইউটিউবে হলি মিডিয়ার ব্যানারে নতুন কয়েকটি গান রিলিজ হয়েছে তার মধ্যে- আরাকান আরাকান. জঙ্গী. নাস্তিক. বাঙালী মুসলমান. হ্যাভ ঈমান. বাঁচাও বাংলাদেশ. এটা বাংলাদেশ. তুমি আছো দূর আরবে. তোলো তাকবীরে. ওপেন দ্যা বর্ডার. কৃষকের গান. প্রবাসীদের গান. মাল্লা মাঝি সহ অনান্য সব কয়টি গান  ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে।।

সবগুলো এ্যালবাম ও সঙ্গীতের গীতিকার, সুরকার ও কণ্ঠশিল্পী তিনি নিজেই করে ব্যাপক খ্যাতি ও লক্ষ-কোটি মানুষের ভালোবাসা পেয়েছেন।।

বাংলাদেশের জাতীয় শিল্পীদের অনেকেই গণমাধ্যমে তার লেখা দেশের গান পরিবেশন করেছেন। তারমধ্যে অন্যতম হলেন- মনির খান, কনকচাঁপা, সুবীর নন্দী, আবিদা সুলতানা, শাকিলা জাফর, আইয়ুব বাচ্চু, হায়দার হোসেন, মমতাজ, আগুন, শুভ্রদেব, ফাহমিদা নবী প্রমুখ।।

মুহিব খানের দেশ-বিদেশে প্রতিটি কনসার্টে শ্রোতাদের স্বতস্ফুর্ত উচ্ছাস ও ব্যাপক জনসমাগম পরিলক্ষিত হয়। বাংলাদেশের সামরিক বাহিনীর জন্য উদ্দীপনা সংগীত ‘ইঞ্চি ইঞ্চি মাটি’ এবং রাষ্ট্রীয় আইন শৃংখলা রক্ষীবাহিনী বাংলাদেশ আনসার-ভিডিপির দলীয় সংগীতের রচয়িতা ও সুরকার তিনিই।।

বাংলাদেশের প্রথম পূর্ণাঙ্গ ধর্মীয় টিভি চ্যানেল ইসলামিক টিভির প্রথম অনুষ্ঠান নির্বাহীও তিনি ছিলেন। দেশের ইসলামী তারুণ্যকে অপসংস্কৃতি, কুসংস্কার, জঙ্গি  উগ্রবাদ নেশা মাদক ও সন্ত্রাসবাদের পথ থেকে রক্ষা করে সুশিক্ষা, সংস্কৃতি ও মানবতার কল্যাণে উদ্বুদ্ধ করে সুযোগ্য ও সক্রিয় নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে তিনি ‘ইসলামিক কালচারাল ইনস্টিটিউট’ (আই.সি.আই) নামে একটি প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করছেন।।

এছাড়াও বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় একমাত্র ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ইসলামিক ফাউন্ডেশনে তিনি নিয়মিত শিল্পী, আলোচক এবং জাতীয় সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার সম্মানিত বিচারকের দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি দেশের সর্বাধিক প্রচারিত ও পাঠক নন্দিত জাতীয় সাপ্তাহিক লিখনীর সম্পাদক হিসেবেও দায়িত্বরত ছিলেন।।

তার বেশকিছু বই বাজারে রয়েছে। উল্লেখযোগ্য হলো – লাল সাগরের ঢেউ, অচিনকাব্য, প্রানের আওয়াজ, নতুন ঝড়, মুরা কাবা, আমার গান, কবিতা কলাম, প্রেম বিরহ, ইলহাম ইত্যাদি।।

দেশে ও দেশের বাইরে তিনি ‘জাগ্রত কবি’ উপাধিতে সমাদৃত। পূর্ব লন্ডনে আয়োজিত এক গণসংর্বধনায় তাকে ‘মুসলিম উম্মাহর জাতীয় কবি’ উপাধিতেও ভূষিত করা হয়।।

শিক্ষা জীবনে তিনি ইসলামিক স্টাডিজ ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। বর্তমানে তিনি ইতিহাস দর্শন সংস্কৃতি ও ধর্মতত্ত্ব বিষয়ে ব্যক্তিগত পর্যায়ে উচ্চতর গবেষণা করে যাচ্ছেন। তার ভক্ত ও শুভানুধ্যায়ীরা তাকে একজন আধুনিক আলেম, দার্শনিক ও রাষ্ট্রচিন্তাবিদ হিসেবে মূল্যায়ন করে থাকেন।।

তিনি ন্যাশনাল-মুভমেন্ট নামের একটি রাজনীতি দল গঠন করেছেন। বাংলাদেশ সরকারের প্রতি রয়েছে ১৬দফা প্রস্তাব।।

মুহিবুল্লাহ খানের পিতা দেশ বরেণ্য ইসলামী চিন্তাবিদ ও শিক্ষাবিদ মাওলানা আতাউর রহমান খান ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সম্মানিত সদস্য।।

এবার নতুন চমক নিয়ে জাতীর সামনে হাজির হলেন কলম ও কন্ঠ সিপাহী মুহিব খান,
পবিত্র কোরআনুল কারিমের সম্পূর্ণ কাব্যানুবাদ সম্পন্ন করেছেন জাগ্রত কবি আল্লামা মুহিব খান। হয়তো শীঘ্রই এটার সম্পূর্ণ বই আকারে বের হবে। প্রথম দশ পারার একটি খন্ড অনেক আগেই বের হয়েছে এবার পুরোটা বের হবার পালা। সারা বিশ্বের মধ্যে তিনিই একমাত্র ব্যক্তি যিনি এই সুবিশাল কাজটি করার উদ্যোগ নেন এবং তার যুবক বয়সে তা শেষ করতে সক্ষম হন। একেবারে সহজভাবে নেওয়ার মতো ব্যাপার কিন্তু নয় এটা। পুরো কোরআনের কাব্যানুবাদ। যা করতে সক্ষম হয়েছেন প্রিয় কবি আল্লামা মুহিব খান।।

ইসলামি সংস্কৃতি অঙ্গনে প্রিয় তারকা কবি সংগীত শিল্পী মুহিব.খান এর অবস্থান সমুজ্জল আগামি দিনে প্রিয় শিল্পীর কাছ থেকে আরো কিছু আঁলোকিত কাজ আশাবাদী। আমরা উনার সাফল্য দীর্ঘায়ু কল্যান সুস্থতা কামনা করি।

লেখক: শিহাব খান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *