হাফেজ মুহাম্মদ আবু রাহাত

সর্ববৃহৎ টেলিভিশনভিত্তিক জাতীয় হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতা ২০২০ পিএইচপি কোরআনের আলোয় এবার প্রথম হয়েছে সিরাজগঞ্জের হাফেজ মুহাম্মদ আবু রাহাত। দ্বিতীয় হয়েছে সিলেটের প্রতিযোগী হাফেজ মুহাম্মদ আখতারুল ইসলাম। তৃতীয় হয়েছে বাহ্মণবাড়িয়ার প্রতিযোগী হাফেজ মুহাম্মদ সারোয়ার আহমাদ। আজ বৃহস্পতিবার তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন বিচারকরা। অনুষ্ঠানটির মিডিয়া পার্টনার এনটিভি।

এক যুগ (১২ বছর) পূর্ণ করেছে পিএইচপি কোরআনের আলো প্রতিভার সন্ধানে অনুষ্ঠান। নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে দর্শক-শ্রোতাদের ভালোবাসায় বারবার সিক্ত হয়েছে এ অনুষ্ঠান। খুদে হাফেজদের কণ্ঠে মহাগ্রন্থ আল কোরআনের বাণী দর্শকদের যেমন বিমোহিত করেছে, তেমনি দর্শকদের কাছে পৌঁছে দিয়েছে কোরআনের আলোকিত বার্তাও।

হাফেজ মুহাম্মদ আখতারুল ইসলাম
পিএইচপি কোরআনের আলোয় এবার দ্বিতীয় হয়েছে সিলেটের প্রতিযোগী হাফেজ মুহাম্মদ আখতারুল ইসলাম। ছবি : এনটিভি

কণ্ঠের মাধুর্য, শুদ্ধ উচ্চারণ আর ইসলামের শান্তিময় আবেশ ছড়িয়ে রমজান মাসজুড়ে দর্শকদের মহাগ্রন্থ আল কোরআনের শ্বাশত বাণীতে মুগ্ধ করে রেখেছিলেন এসব খুদে হাফেজ। ইসলামের শান্তি সাম্য আর ভ্রাতৃত্বকে উড্ডীন করে খুদে হাফেজদের কণ্ঠে উচ্চারিত কোরআনের এই আলো আলোকিত করেছিল লাখো শ্রোতার হৃদয়। উপস্থিত সবার কণ্ঠেই ছিল এমন নান্দনিক আয়োজনের গুনগান।

হাফেজ মুহাম্মদ সারোয়ার আহমাদ
পিএইচপি কোরআনের আলোয় এবার তৃতীয় হয়েছে বাহ্মণবাড়িয়ার প্রতিযোগী হাফেজ মুহাম্মদ সারোয়ার আহমাদ। ছবি : এনটিভি

প্রতিবছর জাঁকজমকপূর্ণ গ্র্যান্ড ফিনালেতে খুদে হাফেজদের তিলাওয়াত শুনতে আসতেন সুধীজন, গুরুজনরাও। মধুর তিলাওয়াত ও বিচারকদের কঠিন প্রশ্নোত্তরের অনুষ্ঠান শেষে ঘোষণা করা হতো বিজয়ীর নাম। কিন্তু এবার করোনাভাইরাসের কারণে এক বিরূপ পরিস্থিতির মধ্যে অনাড়ম্বরহীনভাবে গ্র্যান্ড ফিনালে অনুষ্ঠিত হয়। বিচারকরা অনলাইনের মাধ্যমে ফনোলাইভে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন। সূত্র : এনটিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *